মধুমিতা

174

মধুমিতা , সন্ধ্যা নামে, চলো উঠি

যদি কোনদিন পা রাখো ওয়াপদার হলুদ ঘেরা শান্ত কলোনীতে
রেললাইন, লালব্রিজ পাহাড় পাহাড় ঢালে
যদি কোনদিন সারাবাজার মাত করে খুলে দেখো আলমডাঙ্গার শরীর
ক্যানাল ঘেঁষা পথে ছুটন্ত ট্রাক,
হোটেলপট্টি, সোনাপট্টি
বন্ডবিলের কালভার্টের নিচে লুকোচুরি
যদি কোনদিন আনন্দধাম পেরিয়ে শ্মশানঘাট কালিমন্দির ছাড়িয়ে
পা রাখো বক্সিপুরের পথে
সন্ধ্যাটা কাটিয়ে আসো আটকপাট –
তুমি সবখানে আমার পদচিহ্ন পাবে।
বাতাসে পাবে আমার আহ্বান,
তোমার চোখের উঠোনে খেলা করবে আমার চোখের রোদ ।
তোমার বুক পকেটে থাকবে আমারই প্রেমিকার দেওয়া সোনার কলম।
কলেজের সেগুনতলায় আমার মতো কেউ গল্প করবে
আগুন জ্বালবে, নিজেরা জ্বলবে…
একজোড়া কাতর চোখ তোমাকেও পাহারা দেবে, যেমন দিয়েছে আমায়।
কিন্তু আমি আর সূর্য ডোবার কালে বলবো না
“মধুমিতা, সন্ধ্যা নামে, চলো উঠি”


(লিখেছিলাম ৪/৪/১৯৮৪ তারিখে। তখন মধুমিতা নামে একজন ছিল। ছবিটাও সেই সময়ের। লালব্রিজের উপর থেকে রাধিকাগঞ্জ )